হলিউডের ওয়ান্ডার ওম্যান অবশেষে ঢাকায় ১৯৮৪

হলিউডের ওয়ান্ডার ওম্যান অবশেষে ঢাকায় ১৯৮৪

হলিউডের ওয়ান্ডার ওম্যান অবশেষে ঢাকায় ১৯৮৪
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র্য ডেস্ক:গ্যাল গ্যাডট অভিনীত প্রতীক্ষিত হলিউড সিনেমা ‘ওয়ান্ডার ওম্যান ১৯৮৪’ গত ১৬ ডিসেম্বর বিশ্বজুড়ে মুক্তি পেয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে এর আগে বারবার সিনেমাটির মুক্তির তারিখ পিছিয়েছে। সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশেও ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে । আগামী ২৫ ডিসেম্বর থেকে স্টার সিনেপ্লেক্সের সবগুলো শাখায় দেখা যাবে ‘ওয়ান্ডার ওম্যান ১৯৮৪’।

এর আগে চলচ্চিত্রটি মুক্তির তারিখ চলতি বছরের ৫ জুন এবং পরবর্তীতে পিছিয়ে ২ অক্টোবর নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে আবারো বাড়ে প্রতীক্ষা।

ব্যাটম্যান, সুপারম্যানের ছবিতে মাঝেমধ্যেই এই সুপারহিরোকে দেখা গেলেও তাকে নিয়ে সলো সিনেমা কখনোই হয়নি। ২০১৭ সালে অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই ওয়ার্নার ব্রাদার্স রিলিজ করে ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’ সিনেমা। মাত্র ১২০ মিলিয়ন বাজেটের ছবিটি ব্যবসা করেছিল ৮২১ মিলিয়নের ওপর।

সেই বছরই ডিসির মাল্টিস্টারার জাস্টিজ লিগ রিলিজ হলেও ওয়ান্ডার ওম্যানের সাফল্যকে টপকাতে পারেনি। ফলে ২০১৭-এর পর ভক্তরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেছিল এই সুপারহিরোর দ্বিতীয় সিনেমা কবে আসবে তাই নিয়ে। সেই অপেক্ষা ফুরাতে চললো অবশেষে।

‘ওয়ান্ডার ওম্যান’-এর সিক্যুয়েল ‘ওয়ান্ডার ওম্যান ১৯৮৪’ সিনেমার ২ মিনিট ২৪ সেকেন্ডের ট্রেলারে পাওয়া গেছে জমজমাট এক গল্পের আভাস। সেখানে দেখা গেছে একাধিক টুইস্টও। দেখা গেছে, ডায়নার কাছে ফিরে এসেছে স্টিভ। তবে এটা ভিলেন লর্ডের কারসাজি। এখানে অ্যান্টিহিরো হিসেবে থাকছে ম্যাক্সওয়েল লর্ড, যে মানুষের স্বপ্ন দেখতে পায়। পাশাপাশি ওয়ান্ডার ওম্যান ছাড়াও এবারে রয়েছে চিতা। যদিও তাকে সেই রূপে ট্রেলারে দেখা যায়নি।