হাফিজ সাইদকে সাজা দিয়ে পাকিস্তান সবাইকে বোকা বানাচ্ছে

হাফিজ সাইদকে সাজা দিয়ে পাকিস্তান সবাইকে বোকা বানাচ্ছে

হাফিজ সাইদকে সাজা দিয়ে পাকিস্তান সবাইকে বোকা বানাচ্ছে
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র্য ডেস্ক:পাকিস্তান আদালত, পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গী সংগঠন লস্কর-ই- তৈয়বা (এলইটি) ও জামাত-উদ-দুয়া (জেইউডি) প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সাইদকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে। এই সাজার মাধ্যমে ফ্রান্সভিত্তিক জঙ্গী অর্থদাতা দমন কমিশন ফিনানশিয়াল একশন টাস্ক ফোর্সকে (এফএটিএফ) বোকা বানানো হচ্ছে। কারণ ২০১৮ সালে পাকিস্তান এফএটিএফ-এর সন্দেহভাজন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। কালো তালিকায় নাম উঠানোর আগেই হাফিজ সাইদকে কারাদণ্ড দেয়ার নাটক সৃষ্টি করেছে তারা।

এতে বলা হয়, হাফিজ সাইদ একজন আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী। জাতিসংঘ তাকে সন্ত্রাসী হিসেবে আখ্যা দিয়েছে বেশ আগে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও তার মাথার ওপর ১ কোটি মার্কিন ডলার (৮৬ কোটি টাকার বেশি) পুরষ্কার ঘোষণা করেছে। অথচ এরকম একজন সন্ত্রাসীকে পাকিস্তান আদালতে পুলিশ ভ্যানে না এনে হাজির করা হল দামী গাড়িতে করে। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী, মামলা চলার সময় কারাগার থেকেই আসতে হবে হাফিজকে। তাহলে তিনি কীভাবে দামী গাড়িতে করে আদালতে আসছেন। শীর্ষ একজন জঙ্গী নেতাকে পাকিস্তান সরকার যেভাবে আতিথিয়তা দেখাচ্ছে তা প্রশ্নবিদ্ধ আচরণ ছাড়া আর কিছুই না। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সরকারের মদদেই এমনটি হচ্ছে। আদালতে যাতায়াতের সময়েই সে যখন এতো আপ্যায়ন পাচ্ছে তাহলে একবার ভাবুন কারাগারে কতো আরামে সে আছে। এরকম সুযোগ সুবিধা পেলে যেকোনো জঙ্গী সদস্যের কারাগারে যেতে কোনো আপত্তি থাকবে না।

পাকিস্তান সরকার হাফিজকে নিয়ে এসব নাটক করার মূল কারণ, এফএটিএফ ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পাকিস্তানকে জঙ্গী মদদের বিষয়ে কড়া নজরদারিতে রাখবে। যদি কোন আলামত পাওয়া যায় তাহলে কালো তালিকায় চলে যাবে দেশটি। সেখান থেকে বাচতেই এমন পদক্ষেপ।

এর আগে, জঙ্গী মদদ ও আশ্রয়ের অভিযোগে পাকিস্তান থেকে মুখ সরিয়ে নেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এক প্রতিবেদনে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর জানায়, আফগানিস্তানের বিভিন্ন জঙ্গী সংগঠনকে নানাভাবে সাহায্য করছে পাকিস্তান। শুধু তাই নয়, প্রয়োজনে আশ্রয় দিচ্ছে তারা। কিন্তু সরকার তা দমনে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

এফএটিএফ'ও যেন যুক্তরাষ্ট্রের মতো একই অভিযোগ তুলতে না পারে তাই হাফিজকে নিয়ে মামলার নাটক সাজাচ্ছে পাকিস্তান। এমনটিই মনে করে ইন্দো এশিয়ান নিউজ সার্ভিস (ইয়ান)।