বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুক্ত বাণিজ্যক জোট এশিয়ায়

বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুক্ত বাণিজ্যক জোট এশিয়ায়

বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুক্ত বাণিজ্যক জোট এশিয়ায়
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র্য ডেস্ক:যুক্তরাষ্ট্রকে বাদ দিয়েই এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১৫টি দেশ নিয়ে বিশ্বের বৃহত্তম মুক্ত বাণিজ্য জোট হয়েছে।

রোববার অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান ন্যাশনসের (আসিয়ান) সম্মেলনে স্বাক্ষরিত হয় এই রিজিওনাল কম্প্রিহেনসিভ ইকোনমিক পার্টনারশিপ (আরসিইপি) চুক্তি। আসিয়ান জোটের ১০টি দেশ ছাড়াও এই জোটের অন্তর্ভুক্ত চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

আরসিইপি জোট গঠনের আলোচনায় শুরু থেকে যুক্তরাষ্ট্র থাকলেও ২০১৭ সালে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজ দেশকে প্রত্যাহার করে নেন। এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১০টি দেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের মুক্ত বাণিজ্যের জোট ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারনাশিপ (টিপিপি) থেকেও যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেন ট্রাম্প। এরফলে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনৈতিক অঞ্চলের জোট থেকে বাদ পড়ল যুক্তরাষ্ট্র।

আরসিইপি জোটের কারণে এশিয়ায় বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীনের সঙ্গে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, জাপান ও কোরিয়ার বাণিজ্যের পথ আরও সুগম হবে। এ অঞ্চলের বাণিজ্যিক নীতি প্রণয়নেও এগিয়ে থাকবে চীন।

আইএনজি গ্রুপের প্রধান অর্থনীতিবিদ আইরিস প্যাং জানান, আরসিইপির কারণেই আন্তর্জাতিক বাজারের ওপর চীনের নির্ভরশীলতা কমে আসবে।

জোটভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্যিক শুল্ক কমানোর লক্ষ্যেই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই জোটভুক্ত দেশগুলোর অর্থনৈতিক আয়তন বৈশ্বিক অর্থনীতির ৩০ শতাংশ।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণের পরপরই টিপিপি নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেবেন, এ সম্ভাবনা কম। কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলাই তার প্রথম অগ্রাধিকার হবে।

ইউএস চেম্বার অব কমার্সের চার্লস ফ্রিম্যান জানান, বাণিজ্য বিষয়ক কোনো চুক্তিতে আপাতত যুক্তরাষ্ট্রের নজর থাকবে বলে মনে করি না। অন্তত প্রথম বছরে; কারণ কোভিড মহামারি মোকাবেলায় ব্যস্ত থাকবে প্রশাসন।

ভিয়েতনামের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বহুপক্ষীয় বাণিজ্য নীতির প্রধান লুয়ং হোয়াং থাই জানান, আরসিইপির মাধ্যমে জোটভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে শিল্পজাত ও কৃষি পণ্যের বাণিজ্যে শুল্ক কমে আসবে। নিজস্ব বাণিজ্যিক নীতি প্রণয়ন করা হবে।

এই জোটে যোগ দেওয়ার কথা থাকলেও গত বছর নভেম্বরে আলোচনা থেকে বের হয়ে যায় ভারত। তবে আরসিইপি জোটে ভারত সবসময় স্বাগত বলে জানিয়েছেন আসিয়ানের নেতারা।