বিল পরিশোধ হবে চেহারা দেখিয়ে

বিল পরিশোধ হবে চেহারা দেখিয়ে

বিল পরিশোধ হবে চেহারা দেখিয়ে
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র ডেস্ক:বায়োমেট্রিক অথবা ফেসিয়াল রিকগনিশনের মাধ্যমে রেস্টুরেন্টের খাবারের বিল থেকে শপিং মলের কেনাকাটার বিল-সবই দেওয়া যাবে এক সময়। বিশেষজ্ঞরা এমনটিই বলছেন ।

তবে সেটি যে এত দ্রুত চালু হয়ে যাবে, তা হয়তো ভাবেনি কেউ। লস এঞ্জেলেসের ছোট একটি মেক্সিকান রেস্তোরাঁয় গিয়ে স্যান্ডউইচ অর্ডার দিলেন সারা স্টিওয়ার্ট। বিল পরিশোধ করতে গিয়ে দেখলেন তার মুখয়ব কাউন্টারের মনিটরে ভাসছে। ওই স্ক্রিনে বিলের পরিমাণ উল্লেখ করে তাকে শুধু একটি স্বাক্ষর দিতে হয়েছে। ব্যস, হয়ে গেল! তাকে ব্যাংকের কার্ড বের করতে হয়নি; বিল পরিশোধ হয়ে গেল।

পেমেন্টের পুরো ব্যাপারটা ৫ সেকেন্ডেই হয়ে গেল। বিলের অর্থটা তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হলো। বিজ্ঞানের এ যুগে আগের অনেক অসম্ভবই এ সময়ে এসে বাস্তবে রূপ নিয়েছে।

আর কেনাকাটা বা বিল পরিশোধে কার্ডের জায়গাটি একদিন পুরোপুরি বায়োমেট্রিক বা মুখয়ব পদ্ধতির (ফেসিয়াল রিকগনিশন পেমেন্ট) দখলে যাবে! এমন বাস্তবতা সুদূরের ভবিষ্যৎ মনে হলেও বা এর চল সীমিত পরিসরে হলেও ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। চীনের প্রধান কিছু শহরের বিপণি কেন্দ্রগুলোয় দিনে কয়েক লাখ পেমেন্ট হয় ফেসিয়াল রিকগনিশন পদ্ধতিতে।

যুক্তরাষ্ট্র, ডেনমার্ক এমনকি নাইজেরিয়ার কয়েকটি জায়গায়ও পরীক্ষামূলকভাবে এ ধরনের পেমেন্ট পদ্ধতি চালু হয়েছে। এ পদ্ধতিতে একেক জনের স্বতন্ত্র মুখয়বকেই তার ডিজিটাল আইডেন্টিটি হিসাবে ব্যবহার হয়েছে, যার সঙ্গে ব্যাংক ও এ সংশ্লিষ্ট সিস্টেমের এক রকম সংযোগ রাখা হয়েছে।