পৌরসভা নির্বাচন: দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, কুপিয়ে জখম

পৌরসভা নির্বাচন: দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, কুপিয়ে জখম

পৌরসভা নির্বাচন: দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ,  কুপিয়ে জখম
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র ডেস্ক:ভোট কেন্দ্রের পাশে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে কুমিল্লা চান্দিনা পৌরসভা নির্বাচনে। একজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে এসময়।

শনিবার সকাল ৯টার দিকে পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের হারং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের পাশে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় সংঘর্ষে আরও তিনজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

গুরুতর জখম ব্যক্তির নাম মহসিন।  তিনি একই এলাকার বাসিন্দা।  তিনি কাউন্সিলর প্রার্থী বিল্লাল হোসেনের সমর্থক।

কাউন্সিলর প্রার্থী বিল্লাল হোসেনের ভাই ইব্রাহিম খলিলের অভিযোগ, ভোটারদের কেন্দ্রে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ওই ওয়ার্ডের উট পাখি প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী নাজমুল হাসানের সমর্থকরা পাঞ্জাবি প্রতীকের বিল্লাল হোসেনের সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় মহসিন নামে তাদের এক সমর্থককে কুপিয়ে জখম করা হয়।  তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। এরপর মহসিনকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় আরও তিনজন আহত হয়েছেন।

উল্লেখ্য, চান্দিনা পৌরসভায় মোট জনসংখ্যা ৫৫ হাজার ৯০০ জন।  ভোটার ৩১ হাজার ৮৪৮জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৫ হাজার ৬৭৮ জন, নারী ভোটার ১৬ হাজার ১৭০।  আজ সকাল থেকেই ভোট চলছে বিভিন্ন কেন্দ্রে।

নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন পাঁচ প্রার্থী। তারা হলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. শওকত হোসেন ভূইয়া, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী চান্দিনা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র শাহ্ মো. আলমগীর খাঁন, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি এলডিপি মনোনীত ছাতা প্রতীকের প্রার্থী জামশেদ আহম্মদ জাকি,  ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত হাত পাখা প্রতীকের প্রার্থী কাজী রেজাউল করীম এবং একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী জগ প্রতীকে চান্দিনা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মো. শামীম হোসেন।

এই নির্বাচনে ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৪০প্রার্থী এবং তিনটি সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাত প্রার্থী।