নতুন নিয়ম মেনে কান উৎসবে যেতে হবে

নতুন নিয়ম মেনে কান উৎসবে যেতে হবে

নতুন নিয়ম মেনে কান উৎসবে যেতে হবে
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র ডেস্ক:কান উৎসবের ৭৪তম আসর ঘনিয়ে আসছে। অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা হয়ে গেছে। আগামী কয়েকদিনে বিচারকদের তালিকা জানিয়ে দেবেন আয়োজকরা। এবারের আসরে ইতিমধ্যে ১৮ হাজার পেশাদার চলচ্চিত্রকর্মী ও সাংবাদিক অ্যাক্রেডিটেশনের জন্য আবেদন করেছেন।

কান উৎসব সাধারণত মে মাসে হয়ে থাকে। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এবার ৬ জুলাই থেকে ১৭ জুলাই পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে এই আয়োজন। ভার্চুয়ালি নয়, ১২ দিন ধরে অতিথিদের সশরীরে অংশগ্রহণ দেখা যাবে সাগরপাড়ে। তবে অংশগ্রহণকারীদের জন্য থাকবে কঠোর সুরক্ষা ব্যবস্থা। ফ্রান্স সরকার কর্তৃক অনুমোদিত স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিধি কান উৎসবের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে চলতি মাসেই।

অ্যাক্রেডিটেশন ছাড়াও এবারের আসরে অংশ নিতে হলে এবার বাড়তি শর্ত মানতে হবে। এর মধ্যে স্বাস্থ্য সুরক্ষার যেকোনো একটি নিয়ম মেনে উৎসব উপভোগ করা যাবে।

১. ইউরোপীয় মেডিসিন এজেন্সি কর্তৃক স্বীকৃত করোনা প্রতিরোধক টিকার দুই ডোজ গ্রহণের সনদ থাকতে হবে। এতে উল্লেখ করা তারিখ অনযায়ী দুই ডোজ টিকা দেওয়ার পর ১৪ দিন পেরিয়েছে কিংবা একটি ডোজ গ্রহণের পর চার সপ্তাহ অতিক্রম হয়েছে এমন প্রমাণ লাগবে।

২. ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ইস্যু করা একটি নেগেটিভ পিসিআর অথবা অ্যান্টিজেন পরীক্ষার ফল থাকতে হবে। এক্ষেত্রে কান উৎসবে অংশগ্রহণের সময় প্রতি ৪৮ ঘণ্টা পরপর একবার করে নমুনা পরীক্ষা করতে হবে। অর্থাৎ কেউ করোনা প্রতিরোধক টিকা না নিয়ে থাকলে প্রতি ৪৮ ঘণ্টা পরপর কোভিড-১৯ পরীক্ষা করাতে হবে।

৩. ছয় মাস আগে এবং ১৫ দিনেরও কম সময়ের মধ্যে অ্যান্টিবডি পরীক্ষা কিংবা আরটি-পিসিআর পরীক্ষার মাধ্যমে সংক্রমণ মুক্ত থাকার সনদ থাকতে হবে।

আশার কথা হলো, কানে পৌঁছানোর পর কিংবা কানে থাকাকালীন উৎসবের প্রাণকেন্দ্র পালে দে ফেস্টিভালের কাছেই আয়োজকদের একটি কেন্দ্রে বিনামূল্যে নমুনা পরীক্ষা করানো যাবে। ফরাসি ও বিদেশি অংশগ্রহণকারীদের জন্য কেন্দ্রটি সপ্তাহের সাতদিন খোলা থাকবে। তবে মানুষের উপস্থিতির ওপর অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া নির্ভর করবে।

গত ৩ জুন কান উৎসবের পরিচালক থিয়েরি ফ্রেমো অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা করেন। তার পাশে ছিলেন উৎসবটির সভাপতি পিয়ার লেসকিউর। আয়োজকদের আত্মবিশ্বাস, মূল প্রতিযোগিতার পাশাপাশি সৈকতে ছবির প্রদর্শনীসহ সবকিছুই স্বাচ্ছন্দ্যে করা যাবে। কারণ কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কিছু বিধিনিষেধ শিথিল করেছে ফ্রান্স সরকার।

আশা করা হচ্ছে, হিমেল হাওয়ায় ফরাসি উপকূলে আবার পার্টিতে মেতে উঠবেন আন্তর্জাতিক তারকারা। কিন্তু যুক্তরাজ্যের মতো কিছু দেশের ভ্রমণকারীদের ক্ষেত্রে ফ্রান্সে এখনও কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক। যদিও সান্ধ্যকালীন কারফিউ থাকছে না।

ধারণা করা হচ্ছে, আগামী ১ জুলাই থেকে ফ্রান্সে প্রেক্ষাগৃহে দর্শকসংখ্যা সীমিত রাখার শর্ত উঠে যাবে। ফলে অফিসিয়াল সিলেকশনের সব ছবিই দর্শকে পরিপূর্ণ প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হবে বলে আশা করছেন কানের আয়োজকরা। অবশ্য প্রদর্শনী চলাকালে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক থাকবে। কিন্তু লালগালিচায় মুখে মাস্ক না রাখতে হলেও মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। যদিও আনন্দ যেন মাটি না হয়ে যায় সেজন্য খুব বেশি কঠোর হতে চান না আয়োজকরা।

বিশ্বের বৃহত্তম চলচ্চিত্র উৎসবকে সামনে রেখে ফরাসি উপকূলে হোটেল মার্টিনেজসহ পাঁচতারকা হোটেলগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে আতিথেয়তা দিতে প্রস্তুত। অভ্যর্থনা শাখায় মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার সাজিয়ে রাখা হচ্ছে। কান উৎসবে এবার লালগালিচার জৌলুসের সঙ্গে আলাদাভাবে নজর কাড়বে নানান রঙের মাস্ক!

মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে এবার রয়েছে ২৪টি ছবি। এগুলোর মধ্যে স্বর্ণ পাম কে জিতবে তা নির্ধারণে বিচারকদের প্রধান হিসেবে কাজ করবেন আমেরিকান নির্মাতা স্পাইক লি। আরেক প্রতিযোগিতা বিভাগ আঁ সার্তে রিগায় স্থান পেয়ে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশের আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ‘রেহানা মরিয়ম নূর’।

এবারের আসরে সম্মানসূচক স্বর্ণ পাম পাবেন আমেরিকান অভিনেত্রী-পরিচালক জোডি ফস্টার।