টিসিবি এবার ২৫ টাকা কেজিতে আলু বেচবে

টিসিবি এবার ২৫ টাকা কেজিতে আলু বেচবে

টিসিবি এবার ২৫ টাকা কেজিতে আলু বেচবে
ছবি: সংগৃহীত

বৈচিত্র্য ডেস্ক: আগামী তিন দিনের মধ্যে ২৫ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রি করবে টিসিবি। আলুর দাম মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত টিসিবির। বাজার থেকে আলু পাইকারি দরে কিনে এই দামে সরবরাহ করবে তারা। বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি রোববার এ কথা জানিয়েছেন।

এর আগে গত সপ্তাহে কৃষি বিপণন অধিদফতর কেজিপ্রতি আলুর মূল্য ৩০ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছিল। কিন্তু বাজারে সেই প্রভাব পড়েনি। এখনও বাজারে ৪০-৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে আলু।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, কোল্ডস্টোরেজ পর্যায়ে আলু ২৩ টাকা, পাইকারি পর্যায়ে ২৫ টাকা ও খুচরা পর্যায়ে ৩০ টাকা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। কৃষি বিপণন অধিদফদতর থেকে তিনস্তরে আলুর যে দাম নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে, সেটি কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা হবে। আমাদের কাজ হলো ভোক্তাদের স্বার্থ দেখা। সে জন্য আমরা তারা যে পরামর্শটা দিয়েছে, সেটি যেন ভোক্তারা পায় সেটি দেখার দায়িত্ব আমাদের। এ জন্য আমরা আজকে আলোচনায় বসেছি।

তিনি বলেন, আমরা আজকে (রোববার) সিদ্ধান্ত নিয়েছি, কৃষি বিপণন অধিদফতর থেকে যে দাম নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে, সেটি বাস্তবায়ন করব।  

মন্ত্রী বলেন, এ মুহূর্তে আমাদের দুটা জিনিস করতে হবে। এক হলো– আমরা শক্তভাবে যে দামটা দেয়া হয়েছে, সেটি অবিলম্বে কার্যকর করতে চাই। আর দ্বিতীয়ত হলো– বরাবরের মতো আমাদের সংকটকালে টিসিবি মানুষের পাশে দাঁড়ায়। তাই আমরা টিসিবিকে নির্দেশ দেব দ্রুত বাজার থেকে আলু কিনতে। যাতে আগামী তিন দিনের মধ্যেই টিসিবির মাধ্যমে ২৫ টাকা কেজি দরে আলু সাধারণ ভোক্তারা পায়।

মন্ত্রী বলেন, কোল্ডস্টোরেজ পর্যায়ে প্রতিকেজি আলুর দাম ২৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সেটি না মানলে কোল্ডস্টোরেজ থেকে এই দামে আলু কিনে বাজারে ছাড়ার ক্ষমতা সরকারের আছে। তাই আমরা তাদের বিপদে ফেলতে চাই না। যেভাবে হিসাব করা হয়েছে ২৩, ২৫ ও ৩০ টাকা। সেটি যথেষ্ট বিবেচনার মাধ্যমেই করা হয়েছে।

দেশের বাজারে আলুর দাম ৫০-৫৫ টাকায় গিয়ে ঠেকার ঘটনা বিরল। ২০-২২ টাকা কেজি দরের আলু মানুষকে খেতে হয়েছে দ্বিগুণেরও বেশি দামে। অথচ সরকার বলছে– আলুর ঘাটতি নেই, যথেষ্ট মজুদ আছে। এতে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস দেখা দেয়।